ফ্রেশাররা কীভাবে চাকরির দরখাস্ত লিখবেন?

ফ্রেশাররা কীভাবে চাকরির দরখাস্ত লিখবেন?

দেশে নাকি চাকরি নেই?
নাকি দেশে দক্ষ কর্মী নেই?

বাস্তব অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে লেখাটি লিখতে বাধ্য হচ্ছি। দেশে যেখানে ২০২০ এর ভয়াবহ পরিস্থিতিতে বিভিন্ন সেক্টর থেকে মানুষ চাকরি হারিয়ে বেকার হয়ে গিয়েছে সেখানে একমাত্র ই-কমার্স সেক্টরে চাকরির গ্রোথ চোখে পড়েছে। ই-কমার্স সেক্টরে কাজ করার পরিপ্রেক্ষিতে বহু এন্ট্রি লেভেল পজিশনের জন্য ইন্টারভিউ নিতে হয়েছে এবং এখনাে নিচ্ছি। এ কারণে বর্তমানে ক্যান্ডিডেটদের ভাবভঙ্গি বােঝার একটা ভালাে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পেরেছি। সে আলােকেই যারা চাকরির জন্য অ্যাপ্লাই করছেন তাদের উদ্দেশ্যে কিছু পরামর্শ দিতে চাই; যার মাধ্যমে আশা করি আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি অন্য সবার থেকে আলাদা হতে পারে। তো, যেসব ফ্রেশাররা কীভাবে চাকরির দরখাস্ত লিখবেন, এ নিয়ে সন্দিহান; তারা পোস্টটা মন দিয়ে পড়তে পারেন! আশা করি কাজে লাগবে! চলুন শুরু করা যাক!

আরও পড়ুন: কীভাবে ব্লগিং শুরু করবেন?

ফ্রেশাররা কীভাবে চাকরির দরখাস্ত লিখবেন?

  • আপনি যে ইমেইলের মাধ্যমে সিভিটি পাঠাচ্ছেন সেটিতে নিজের পূর্ণ নাম ব্যবহর করুন। আমরা যখন জব মেইল পেয়ে থাকি, তখন কিন্তু আমরা মেইল অ্যাড্রেসটি দেখি না, দেখি প্রার্থীর নাম। তাই যখন দেখি যিনি মেইল দিয়েছেন তার নামে RI, D), Angel, ইত্যাদি দেওয়া, তখন ধরে নিন ওই হায়ারিং ম্যানেজারের আপনার মেইলটি খুলে দেখার ইচ্ছা ৬০-৭০% কমে গিয়েছে। এ ছাড়াও আপনার অজান্তেই আপনি তখন ওই অফিসে একটি হাসির খােরাক হয়ে গিয়েছেন।
  • মেইলে অবশ্যই একটি সাক্সেন্ট ব্যবহার করুন। শুধু মাত্র অথবা নিজের নাম লিখে দিলেই যে একজন HR আপনার মেইলটা খুলে দেখবে তার কোনো গ্যারান্টি নেই। একজন HR এর কাছে অনেক অ্যাপ্লিকেশন মেইল আসে। তাই আপনি কোন পজিশনের জন্য অ্যাপ্লাই করেছেন সেটা যদি সাজেক্টে উল্লেখ না করে দেন; তাহলে ধরে নিন trash folder এ আপনার মেইলটি চলে গিয়েছে। তাই পজিশন মেনশন করে সাবজেক্টে লিখুন।
    যেমন: Applying for the position of Customer Service Officer.
  • অনলাইনে ঘাটলে অনেক সুন্দর কিছু সিভির টেমপ্লেট পাওয়া যায়। সেখান থেকে পছন্দ মতো একটি টেমপ্লেট বেছে নিয়ে নিজের সিভি বানিয়ে নিন। আপনার সিভিটি কিন্তু আপনার পরিচয় বহন করে তাই সুন্দর, পরিচ্ছন্ন একটি সিভি আপনার সুযােগ অন্যেটাই বাড়িয়ে দেয়। সিভির PDF ভার্সন ফাইল পাঠাবেন, ওয়ার্ড [Doc] ভার্সন পাঠাবেন না। আর ড্রাইভের ফাইলের লিংক মেইলে দেবেন না। সরাসরি ফাইলটি অ্যাটাচ করবেন।
  • মেইলে শুধু সিভি অ্যাটাচ করেই খালাশ হয়ে যাবেন না। মেইলের বডিতে অবশ্যই কিছু কথা তাে লিখতে হবে; যাকে কিনা বলা হয়ে থাকে Cover Letter. এর মাধ্যমে আপনি প্রকাশ করবেন যে- কেন ওই পজিশনে কাজ করার জন্য আপনি দক্ষ এবং ওই কোম্পানির HR এর কেন আপনাকে সিলেক্ট করা উচিত!
  • সবশেষে মেইলে একটি সিগনেচার অ্যাটাচ করুন৷ তেমন বেশি কিছু লেখার প্রয়ােজন নেই। শুধুমাত্র আপনার নাম, ফোন নাম্বার, আপনার লিংকডইন প্রােফাইল লিংক [যদি থাকে] ইত্যাদি। নিচে স্যাম্পল হিসবে একটি সিগনেচার দেখানাে হল।With Regards,
    XYZ ABC
    Phone:*
    Linkedin:………
  • লিংকডইন ব্যবহার করা শুরু করুন। এটি একটি প্রফেশনাল নেটওয়ার্কিং প্লাটফর্ম , যেটা আপনাকে ভবিষ্যতে অনেক সাহায্য করতে পারে।

আমার এই ছােট অভিজ্ঞতার আলােকে যতটুকু পেরেছি তাই লিখলাম। আশা করি নতুন চাকরি প্রার্থীদের এই
টিপসগুলাে কাজে লাগবে। আর কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করতে পারেন!

লেখক: হাসান ইশতিয়াক

ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

Leave a Comment